; charset=UTF-8" /> gnewsbd.net  » মিডিয়া » নবরাত্রির শুভেচ্ছায় অভিনেত্রীদের ‘অশালীন’ ছবি, বিতর্কে ইরোস নাও
Date & Time -  

নবরাত্রির শুভেচ্ছায় অভিনেত্রীদের ‘অশালীন’ ছবি, বিতর্কে ইরোস নাও

ইরোস নাও-এর পোস্ট করা ক্যাটরিনার এই ছবি ঘিরে বিতর্ক তুঙ্গে। ছবি টুইটার থেকে নেওয়া।

অনলাইন ডেস্কঃ-  বিনোদন ও অনলাইন ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ‘ইরোস নাও’। নবরাত্রি উপলক্ষে তাদের টুইটার ও ইনস্টাগ্রাম পোস্ট ঘিরে ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। নেটাগরিকদের একাংশ ‘ইরোস নাও’-কে বর্জনের ডাক দিয়েছেন টুইটারে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই ট্রেন্ডিং তালিকায় উপরের দিকে ‘বয়কটইরোসনাও’ হ্যাশট্যাগ।

শনিবার থেকে শুরু হয়েছে নবরাত্রি। সেই উপলক্ষে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের বিভিন্ন ছবি ও সিনেমার বিভিন্ন দৃশ্যের ভিডিয়ো পোস্ট করেছে তারা। সেখানে রয়েছে ২০১৫ সালের ‘বাজিরাও মস্তানি’ ছবিতে দীপিকা পাড়ুকোন। ২০১৩ সালের ‘রামলীলা’ ছবির গরবা নাচের দৃশ্যের ভিডিয়ো রয়েছে সেখানে। তাদের পোস্টে করিনা কপূর হাজির ২০১১ সালের ‘রা ওয়ান’ ছবির ‘ছম্মক ছল্লো’ অবতারে।

ঐশ্বর্য রাই বচ্চন ও সলমন খান অভিনীত ‘হম দিল দে চুকে সনম’ ছবির দৃশ্যও দেখা গিয়েছে। এ ছাড়়াও বিভিন্ন বলিউড অভিনেত্রীদের ছবি বা সিনেমার দৃশ্যের মাধ্যমে নবরাত্রি শুভেচ্ছা জানিয়েছে তারা। তবে নেটাগরিকরা সব থেকে বেশি ক্ষুব্ধ ক্যাটরিনা কইফের একটি ছবি নিয়ে। ছবিতে অভিনেত্রীর পৃষ্ঠদেশ উন্মুক্ত ছিল। নেটগরিকদের মতে, ক্যাটরিনার ওই  ছবি শালীনতার মাত্রা ছাড়িয়েছে। এই ধরনের ছবির মাধ্যমে নবরাত্রির শুভেচ্ছা আসলে ‘হিন্দু ধর্মের অপমান’। ক্যাটরিনা ছাড়াও আরও বেশি কয়েকটি ছবি নিয়ে আপত্তি তুলেছেন ধর্ম নিয়ে সংবেদনশীল নেটাগরিকদের একাংশ। সেখানে নিজেদের ক্ষোভও উগরে দিয়েছেন তাঁরা। এক দল নেটাগরিকদের মতে, ‘হিন্দুধর্ম ও তার গৌরবময় উৎসবকে পরিহাস করা হয়েছে।’

অপর এক দল হুমকির স্বরে লিখেছেন, ‘আমরা হিন্দুবিরোধী এই প্রচার সহ্য করব না।’ কেউ কেউ আবার ইদের পোস্টের সঙ্গে নবরাত্রির পোস্টের পার্থক্যের তুলনাও করে ইরোস নাও-কে বর্জন করতে আহ্বান জানিয়েছেন। তবে ‘বয়কটইরোসনাও’ ট্রেন্ডিং হতে শুরু করে বিজেপির হরিয়ানা আইটি সেলের প্রধান অরুণ যাদবের পোস্টের পর থেকে।

ইরোস নাও-এর দু’টি পোস্টের স্ক্রিনশট শেয়ার করে ‘বয়কটইরোসনাও’-এর ডাক দেন তিনি। তার পরই তা দাবানলের মতো ছড়াতে শুরু করে সোশ্যাল মিডিয়ায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে এই পোস্ট নিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ইরোস নাও কর্তৃপক্ষ। ভারতের সংস্কৃতির উপর নিজেদের শ্রদ্ধার কথা ব্যক্ত করেছেন তাঁরা। কারও ভাবাবেগকে আঘাত করার অভিপ্রায় ছিল না বলে ঘটনার জন্য ক্ষমাও চেয়েছেন। সেই পোস্ট দেখতে — সূত্র:আনন্দবাজার

 

 এই রিপোর্ট পড়েছেন  160 - জন
 রিপোর্ট »শুক্রবার, ২৩ অক্টোবার , ২০২০. সময়-১:২৬ AM | বাংলা- 8 Kartrik 1427
রিপোর্ট শেয়ার করুন  »
Share on Facebook!Digg this!Add to del.icio.us!Stumble this!Add to Techorati!Seed Newsvine!Reddit!

Leave a Reply

3 + 0 =